Wellcome to National Portal
মেনু নির্বাচন করুন
Main Comtent Skiped

ভিলেজ এডুকেশন রিসোর্স সেন্টার (ভার্ক)

ভিলেজ এডুকেশন রিসোর্স সেন্টার (ভার্ক)

বি-৩০ এখলাস উদ্দিন খান রোড

আনন্দপুর, সাভার, ঢাকা-১৩৪০



ভার্ক পরিচিতি: 


ভিলেজ এডুকেশন রিসোর্স সেন্টার ১৯৭৭ গঠিত হয়। সংক্ষেপে এর পরিচয় ভার্ক বা ভি ই আর সি, এ নামের অর্থ -  পল্লী সম্পদ ব্যবহার শিক্ষা কেন্দ্র। গঠনকালে ভার্ক ইউনিসেফের আর্থিক সহায়তায় সেভ দ্যা চিল্ড্রেন (ইউএসএ) এর একটি প্রকল্প হিসেবে আত্মপ্রকাশ করে। শুরুতে প্রকল্পটির উদ্দেশ্য ছিল বিভিন্ন শিক্ষা উপকরণ তৈরি, সংগ্রহ এবং তার উন্নয়ন। এসব উপকরণ সমূহ যাচাই ও গ্রহণযোগ্যতা পরীক্ষার পর তা বিভিন্ন সরকারি ও বেসরকারি সংস্থার মধ্যে ছড়িয়ে দেয়া। ভাকর্-কে ১৯৮১ সালে একটি বেসরকারী স্বেচ্ছাসেবী উন্নয়ন সংগঠনে রূপ দেয়া হয়। ভার্ক হয়ে ওঠে এ দেশীয় সংগঠন।


আইনগত বৈধতাঃ    


ভার্ক ১৯৮১ সালে জয়েন্ট স্টক কোম্পানীজ এর নিবন্ধন লাভ করে, ১৯৮২ সালে এনজিও বিষয়ক ব্যুরোর নিবন্ধন লাভ করে, ১৯৮৯ সালে সমাজ সেবা অধিদপ্তর এর নিবন্ধন লাভ করে এবং ২০০৭ সালে মাইক্রোক্রেডিট রেগুলেটরী অথরিটি এর নিবন্ধন লাভ করে।


সংস্থার লক্ষ্য, উদ্দেশ্য এবং বিশেষত্ব: 


সংস্থার লক্ষ্য: 

•    অনগ্রসরদের সক্রিয অংশগ্রহণ এবং ক্ষমতায়ন।

•    মানুষের ক্ষমতা বিকাশ।


সংস্থার উদ্দেশ্য:

মানব উন্নয়নের জন্য একটি গতিশীল ও অংশীদারিত্বমূলক স্থায়ীত্বশীল প্রক্রিয়া প্রতিষ্ঠা ও নিশ্চিত করা। ভার্ক-এর কর্তব্য-কর্ম বা মিশন হচ্ছে - মানব উন্নয়নের লক্ষ্যে এমন এক গতিময় প্রাঞ্জল প্রক্রিয়া গড়ে তোলা ও বিকশিত করা, যে প্রক্রিয়া হবে অংশগ্রহণমূলক এবং টেকসই। ” তাই ভার্ক কর্মক্ষেত্রে নতুন-নতুন প্রক্রিয়া গড়ে তোলে আর তারপর তা থেকে শেখা বিষয়গুলো উন্নয়ন কাজে নিয়োজিত অন্যদের কাছে পৌঁছে দেয়।


সংস্থার বিশেষত্ব:

ন্যায়বিচার, ন্যাযপরায়ণতা এবং টেকসইতার উপর ভিত্তি করে একটি স্বনির্ভর এবং আলোকিত সমাজ যেখানে প্রতিটি মানুষেরই তাদের সম্ভাবনা সর্বাধিক করার সমান সুযোগ রয়েছে।


সংস্থার প্রধান কর্যালয়ের ঠিকানা ঃ


ভিলেজ এডুকেশন রিসোর্স সেন্টার (ভার্ক)

বি-৩০ এখলাস উদ্দিন খান রোড

আনন্দপুর, সাভার, ঢাকা-১৩৪০


প্রকল্প অফিস ঃ 


ভিলেজ এডুকেশন রিসোর্স সেন্টার (ভার্ক)

এসকে ট্ওায়ার, উত্তর তারাবুনিয়ারছড়া 

কক্সবাজার পৌরসভা, কক্সবাজার। 

যোগাযোগ : মোঃ কামরুল হাসান, প্রোগ্রাম ম্যানেজার, ভার্ক, কক্সবাজার।

মোবাইল : ০১৭৪৩-৯২৫২৯৯, ইমেইল : kamrul_verc@yahoo.com


কক্সবাজার জেলায় বাস্তবায়িত প্রকল্পের বিবরণ ঃ


প্রকল্পের নাম : 


Implementation of Cox’s Bazar WASH Program following Community Approaches to Total Sanitation (CATS), Promotion of Water Safety Plans and WASH in Institution under GoB-UNICEF Project.


প্রকল্পের সংক্ষিপ্ত নাম ঃ DEVCO-II WASH Project


সহায়তায় : ইউনিসেফ

প্রকল্পের মেয়াদকাল : ফেব্রুয়ারি ২০২১ ইং হতে জানুয়ারি ২০২৩ ইং। 

প্রকল্প কর্ম এলাকা :  চৌফলদন্ডি ইউনিয়ন, কক্সবাজার সদর উপজেলা এবং ছোট মহেশখালী ইউনিয়ন, মহেশখালী।










ক. কোভিড-১৯ মোকাবেলায় সহায়তাকরণ

•    কোভিড-১৯ মোকাবেলায় কক্সবাজার জেলায় বিভিন্ন উপজেলায় নিয়মিতভাবে ৩০০০ পানির উৎস জীবাণুনাশক স্প্রে কার্যক্রম পরিচালনা করা এবং কমিউনিটির জনগোষ্ঠিকে সচেতন করা;

•    কক্সবাজার জেলার বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, স্বাস্থ্য সেবা কেন্দ্র এবং জনসমাগম স্থানে ১০০০টি হাত ধোয়ার প্রযুক্তি (Hand Washing Device) স্থাপন  করা;

•    কোভিড-১৯ মোকাবেলায় সচেতনতা বৃদ্ধি এবং মোকাবেলায় কমিউনিটি, ইউনিয়ন ও ওয়ার্ড ওয়াটসান কমিটিকে দক্ষতা বৃদ্ধি ও সহায়তা প্রদান করা ;

খ. পানি, পয়ঃনিষ্কাশন ও স্বাস্থ্যবিধি বিষয়ক বেইসলাইন সার্ভে 

•    খানা পর্যায়ে ওয়াশ বিষয়ক অনলাইন সার্ভে পরিচালনা করা ;

•    বেইসলাইন সার্ভের তথ্য ও উপাত্ত নিয়মিতভাবে হালনাগাদ করা ;


গ. খোলা পায়খানা মুক্তকরন ও উন্নত স্যানিটেশন ব্যবহার 

•    জনগণের অংশগ্রহণের মাধ্যমে কমিউনিটির ওয়াশ অবস্থা বিশ্লেষণ 

•    জনগণের নেতৃত্বে কমিউনিটি ও ওয়ার্ড পর্যায়ে ”খোলা পায়খানা মুক্ত” কমিউনিটি ও ওয়ার্ড  ঘোষণা করা ;

•    কমিউনিটির সাথে স্থানীয় স্যানিটেশন ব্যবসায়ীদের সাথে কার্যকর যোগাযোগ ও সংযোগ স্থাপন;

•    কমিউনিটির নেতৃত্বে স্বাস্থ্যসম্মত ল্যাট্রিন স্থাপন ও ব্যবহার নিশ্চিতকরণ;


ঘ. নিরাপদ পানি এবং পানির নিরাপদ পরিকল্পনা

•    পানির নিরাপদ ব্যবহার নিশ্চিত করতে অরিয়েন্টশন প্রদান করা ;

•    খানা পর্যায়ে পানির নিরাপদ ব্যবহার চর্চা করাতে উৎসাহিত ও সহায়তা করা ;

•    কমিউনিটি পর্যায়ে পানির উৎস পরিষ্কার পরিচ্ছন্নতা ও জীবানুমুক্ত রাখতে সহায়তা প্রদান করা ;

ঙ. স্বাস্থ্যবিধি উন্নয়ন   

•    স্বাস্থ্যবিধি শিক্ষা বিষয়ক সচেতনতামূলক উঠান বৈঠক পরিচালনা করা ;

•    নারী ও কিশোরীদের জন্য ঋতুকালীন স্বাস্থ্যবিধি পরিচর্যা বিষয়ক সচেতনতামূলক সভা পরিচালনা ;

•    কমিউনিটির নেতৃত্বে খানা পর্যায়ে স্বল্প মূল্যের হাত ধোয়ার প্রযুক্তি স্থাপন করা ;


চ. প্রাতিষ্ঠানিক পর্যায়ে ওয়াশ


স্কুল পর্যায়ে ওয়াশ  অবস্থার উন্নয়ন

    ওয়াশ ব্লক নির্মাণের জন্য স্কুল পর্যায়ে ওয়াশ বিষয়ক অবস্থা নিরুপণ করা ;

    মাধ্যমিক স্কুল পর্যায়ে উন্নত ওয়াশ ব্লক নির্মাণ করা ;

    তিন তারকা পদ্ধতিতে স্কুল পর্যায়ে ওয়াশ অবস্থা উন্নয়নে সহায়তা করা ;

    স্কুল ব্যবস্থাপনা কমিটি ও শিক্ষকদের জন্য ওয়াশ বিষয়ক অরিয়েন্টশন প্রদান করা 


স্বাস্থ্য সেবা কেন্দ্র পর্যায়্রে ওয়াশ  অবস্থার উন্নয়ন

    ওয়াশ ব্লক নির্মাণের জন্য স্বাস্থ্য সেবা কেন্দ্রগুলোতে ওয়াশ বিষয়ক অবস্থা নিরুপণ করা 

    স্বাস্থ্য সেবা কেন্দ্রগুলোতে ওয়াশ ব্লক নির্মাণ করা 

    স্বাস্থ্য সেবা কেন্দগুর্লোর স্বাস্থ্যকর্মীর জন্য ওয়াশ বিষয়ক অরিয়েন্টশন প্রদান করা 


ছ. দক্ষতা উন্নয়নমূলক বিভিন্ন প্রশিক্ষণ এবং কার্যক্রম পরিচালনা


প্রত্যাশিত ফলাফল ঃ

    ২৫০০০ জন (শিশু, নারী এবং পিছিয়ে পড়া সুবিধাবঞ্চিত জনগোষ্ঠি) উন্নত ল্যাট্রিনের সুবিধা পাবে ;

    ৫০ টি কমিউনিটি/পাড়ার (আনুমানিক ৫০০০ খানা) নিরাপদ পানির অভিগম্যতা পাবে/আওতায় আসবে ;

    ২৫০০০ জন (শিশু, নারী, কিশোরী এবং পিছিয়ে পড়া সুবিধাবঞ্চিত জনগোষ্ঠি) সচেতনতামূলক সেশনের মাধ্যমে  স্বাস্থ্যবিধি উন্নয়ন বিষয়ক বার্তা পাবে ও চর্চা করবে ;

    ৮০০০ জন নারী ও কিশোরী ঋতুকালীন স্বাস্থ্যবিধি পরিচর্যা বিষয়ক সচেতন ও চর্চা করবে ;

    ১০টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে নতুন ওয়াশ অবকাঠামো নির্মাণ এবং ওয়াশ অবস্থার উন্নয়ন হবে ; 

    ১০টি স্বাস্থ্য সেবা কেন্দ্রে (কমিউনিটি ক্লিনিক) নতুন ওয়াশ অবকাঠামো নির্মাণ এবং ওয়াশ অবস্থার উন্নয়ন হবে ;

    প্রশিক্ষণ, কর্মশালা, সভা এবং অরিয়েন্টেশনের মাধ্যমে প্রকল্পের বিভিন্ন স্টেকহোল্ডারদের ওয়াশ বিষয়ক দক্ষতার উন্নয়ন ;


চৌফলদন্ডি ইউনিয়নের (৪টি ওয়ার্ড) ওয়াশ বিষয়ক বেইজ তথ্য:

ওয়ার্ড নং    মোট পাড়া/ কমিউনিটি    মোট পরিবার    জনসংখ্যা    ভিন্ন ধারায় সক্ষম ব্যক্তি    নলকূপ    ল্যাট্রিন

            বালক     বালিকা    পুরুষ    নারী    মোট    নারী    পুরুষ    গভীর    অগভীর    প্লাটফর্ম আছে    প্লাটফর্ম নাই    স্বাস্থ্যকর    অস্বাস্থ্যকর

১    ৪    ৩৮২    ২৫৯    ২৪২    ৭৬০    ৮২৯    ২০৯০    ০    ১    ৮৮    ২৬    ১১৪    ০    ৬৮    ২২৮

২    ৬    ৭৩১    ৮৯০    ৮০২    ১০৮৯    ১০৪৭    ৩৮২৮    ১৪    ১৫    ৬৭    ৭৩    ১৩৯    ১    ৫০    ৩৯১

৩    ৮    ৮৫৯    ১০৫৭    ১০০৮    ১৪০০    ১৩৫৮    ৪৮২৩    ৭    ৪    ৮৫    ৮৫    ১৭০    ০    ৬৬    ৪৮৩

৪    ৭    ৮৪৩    ১০০৯    ৯২৭    ১৩১৩    ১১৬৪    ৪৪১৩    ৭    ২    ৮২    ৬১    ১৪৩    ০    ৪৯    ৫৫৮

মোট    ২৫    ২৮১৫    ৩২১৫    ২৯৭৯    ৪৫৬২    ৪৩৯৮    ১৫১৫৪    ২৮    ২২    ৩২২    ২৪৫    ৫৬৬    ১    ২৩৩    ১৬৬০


প্রকল্পের উল্লেখযোগ্য অর্জন সমূহঃ


•    জনগনের নেতৃত্বে “শতভাগ খোলা পায়খানামুক্ত কমিউনিটি” ঘোষনাকরণ

•    জনগনের নেতৃত্বে স্বাস্থ্যসম্মত পায়খানা স্থাপন  এবং অস্বাস্বাস্থ্যকর পায়খানা স্বাস্থ্যসম্মতকরণ-

•    কমিউনিটি ভিত্তিক নলকূপ জীবাণুমুক্তকরণ কাযক্রম (ডিজইনফেকশন) পরিচালনা-

•    জনসমাগম স্থানে হ্যান্ড ওয়াশিং ডিভাইস স্থাপন

•    জনগণের্ উদ্যোগে খানা পর্ায়ে স্বল্প মূল্যের হ্যান্ড ওয়াশিং ডিভাইস স্থাপন-

•    কমিউনিটি পর্যায়ে স্বাস্থ্যশিক্ষা বিষয়ক উঠানবৈঠক ও বিভিন্ন কার্যক্রম পরিচালনা

•    শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ওয়াশ ব্লক নির্মাণ - ০৫টি

    (চৌফলদন্ডি ইউনিয়নে-২টি, খুরুশকুল ইউনিয়নে-১টি, পিএমখালী ইউনিয়নে-১টি এবং কক্সবাজার পৌরসভায়-১টি)

•    স্বাস্থ্যসেবা কেন্দ্রে (কমিউনিটি ক্লিনিক) ওয়াশ ব্লক নির্মাণ - ০৫টি ;

(চৌফলদন্ডি ইউনিয়নে-২টি, খুরুশকুল ইউনিয়নে-২টি এবং পিএমখালী ইউনিয়নে-১টি)

•    প্রকল্পের বিভিন্ন স্টেকহোল্ডারদের দক্ষতা উন্নয়নমূলক প্রশিক্ষণ ও কর্মশালা আয়োজন ও পরিচালনা ;

•    বিভিন্ন দিবস উদযাপন ;





ধন্যবাদ

ভিলেজ এডুকেশন রিসোর্স সেন্টার (ভার্ক)

বি-৩০ এখলাস উদ্দিন খান রোড

আনন্দপুর, সাভার, ঢাকা-১৩৪০



ভার্ক পরিচিতি: 


ভিলেজ এডুকেশন রিসোর্স সেন্টার ১৯৭৭ গঠিত হয়। সংক্ষেপে এর পরিচয় ভার্ক বা ভি ই আর সি, এ নামের অর্থ -  পল্লী সম্পদ ব্যবহার শিক্ষা কেন্দ্র। গঠনকালে ভার্ক ইউনিসেফের আর্থিক সহায়তায় সেভ দ্যা চিল্ড্রেন (ইউএসএ) এর একটি প্রকল্প হিসেবে আত্মপ্রকাশ করে। শুরুতে প্রকল্পটির উদ্দেশ্য ছিল বিভিন্ন শিক্ষা উপকরণ তৈরি, সংগ্রহ এবং তার উন্নয়ন। এসব উপকরণ সমূহ যাচাই ও গ্রহণযোগ্যতা পরীক্ষার পর তা বিভিন্ন সরকারি ও বেসরকারি সংস্থার মধ্যে ছড়িয়ে দেয়া। ভাকর্-কে ১৯৮১ সালে একটি বেসরকারী স্বেচ্ছাসেবী উন্নয়ন সংগঠনে রূপ দেয়া হয়। ভার্ক হয়ে ওঠে এ দেশীয় সংগঠন।


আইনগত বৈধতাঃ    


ভার্ক ১৯৮১ সালে জয়েন্ট স্টক কোম্পানীজ এর নিবন্ধন লাভ করে, ১৯৮২ সালে এনজিও বিষয়ক ব্যুরোর নিবন্ধন লাভ করে, ১৯৮৯ সালে সমাজ সেবা অধিদপ্তর এর নিবন্ধন লাভ করে এবং ২০০৭ সালে মাইক্রোক্রেডিট রেগুলেটরী অথরিটি এর নিবন্ধন লাভ করে।


সংস্থার লক্ষ্য, উদ্দেশ্য এবং বিশেষত্ব: 


সংস্থার লক্ষ্য: 

ক্স    অনগ্রসরদের সক্রিয অংশগ্রহণ এবং ক্ষমতায়ন।

ক্স    মানুষের ক্ষমতা বিকাশ।


সংস্থার উদ্দেশ্য:

মানব উন্নয়নের জন্য একটি গতিশীল ও অংশীদারিত্বমূলক স্থায়ীত্বশীল প্রক্রিয়া প্রতিষ্ঠা ও নিশ্চিত করা। ভার্ক-এর কর্তব্য-কর্ম বা মিশন হচ্ছে - মানব উন্নয়নের লক্ষ্যে এমন এক গতিময় প্রাঞ্জল প্রক্রিয়া গড়ে তোলা ও বিকশিত করা, যে প্রক্রিয়া হবে অংশগ্রহণমূলক এবং টেকসই। ” তাই ভার্ক কর্মক্ষেত্রে নতুন-নতুন প্রক্রিয়া গড়ে তোলে আর তারপর তা থেকে শেখা বিষয়গুলো উন্নয়ন কাজে নিয়োজিত অন্যদের কাছে পৌঁছে দেয়।


সংস্থার বিশেষত্ব:

ন্যায়বিচার, ন্যাযপরায়ণতা এবং টেকসইতার উপর ভিত্তি করে একটি স্বনির্ভর এবং আলোকিত সমাজ যেখানে প্রতিটি মানুষেরই তাদের সম্ভাবনা সর্বাধিক করার সমান সুযোগ রয়েছে।


সংস্থার প্রধান কর্যালয়ের ঠিকানা ঃ


ভিলেজ এডুকেশন রিসোর্স সেন্টার (ভার্ক)

বি-৩০ এখলাস উদ্দিন খান রোড

আনন্দপুর, সাভার, ঢাকা-১৩৪০


প্রকল্প অফিস ঃ 


ভিলেজ এডুকেশন রিসোর্স সেন্টার (ভার্ক)

এসকে ট্ওায়ার, উত্তর তারাবুনিয়ারছড়া 

কক্সবাজার পৌরসভা, কক্সবাজার। 

যোগাযোগ : মোঃ কামরুল হাসান, প্রোগ্রাম ম্যানেজার, ভার্ক, কক্সবাজার।

মোবাইল : ০১৭৪৩-৯২৫২৯৯, ইমেইল : শধসৎঁষথাবৎপ@ুধযড়ড়.পড়স


কক্সবাজার জেলায় বাস্তবায়িত প্রকল্পের বিবরণ ঃ


প্রকল্পের নাম : 


ওসঢ়ষবসবহঃধঃরড়হ ড়ভ ঈড়ী’ং ইধুধৎ ডঅঝঐ চৎড়মৎধস ভড়ষষড়রিহম ঈড়সসঁহরঃু অঢ়ঢ়ৎড়ধপযবং ঃড় ঞড়ঃধষ ঝধহরঃধঃরড়হ (ঈঅঞঝ), চৎড়সড়ঃরড়হ ড়ভ ডধঃবৎ ঝধভবঃু চষধহং ধহফ ডঅঝঐ রহ ওহংঃরঃঁঃরড়হ ঁহফবৎ এড়ই-টঘওঈঊঋ চৎড়লবপঃ.


প্রকল্পের সংক্ষিপ্ত নাম ঃ উঊঠঈঙ-ওও ডঅঝঐ চৎড়লবপঃ


সহায়তায় : ইউনিসেফ

প্রকল্পের মেয়াদকাল : ফেব্রুয়ারি ২০২১ ইং হতে জানুয়ারি ২০২৩ ইং। 

প্রকল্প কর্ম এলাকা :  চৌফলদন্ডি ইউনিয়ন, কক্সবাজার সদর উপজেলা এবং ছোট মহেশখালী ইউনিয়ন, মহেশখালী।










ক. কোভিড-১৯ মোকাবেলায় সহায়তাকরণ

ক্স    কোভিড-১৯ মোকাবেলায় কক্সবাজার জেলায় বিভিন্ন উপজেলায় নিয়মিতভাবে ৩০০০ পানির উৎস জীবাণুনাশক স্প্রে কার্যক্রম পরিচালনা করা এবং কমিউনিটির জনগোষ্ঠিকে সচেতন করা;

ক্স    কক্সবাজার জেলার বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, স্বাস্থ্য সেবা কেন্দ্র এবং জনসমাগম স্থানে ১০০০টি হাত ধোয়ার প্রযুক্তি (ঐধহফ ডধংযরহম উবারপব) স্থাপন  করা;

ক্স    কোভিড-১৯ মোকাবেলায় সচেতনতা বৃদ্ধি এবং মোকাবেলায় কমিউনিটি, ইউনিয়ন ও ওয়ার্ড ওয়াটসান কমিটিকে দক্ষতা বৃদ্ধি ও সহায়তা প্রদান করা ;

খ. পানি, পয়ঃনিষ্কাশন ও স্বাস্থ্যবিধি বিষয়ক বেইসলাইন সার্ভে 

ক্স    খানা পর্যায়ে ওয়াশ বিষয়ক অনলাইন সার্ভে পরিচালনা করা ;

ক্স    বেইসলাইন সার্ভের তথ্য ও উপাত্ত নিয়মিতভাবে হালনাগাদ করা ;


গ. খোলা পায়খানা মুক্তকরন ও উন্নত স্যানিটেশন ব্যবহার 

ক্স    জনগণের অংশগ্রহণের মাধ্যমে কমিউনিটির ওয়াশ অবস্থা বিশ্লেষণ 

ক্স    জনগণের নেতৃত্বে কমিউনিটি ও ওয়ার্ড পর্যায়ে ”খোলা পায়খানা মুক্ত” কমিউনিটি ও ওয়ার্ড  ঘোষণা করা ;

ক্স    কমিউনিটির সাথে স্থানীয় স্যানিটেশন ব্যবসায়ীদের সাথে কার্যকর যোগাযোগ ও সংযোগ স্থাপন;

ক্স    কমিউনিটির নেতৃত্বে স্বাস্থ্যসম্মত ল্যাট্রিন স্থাপন ও ব্যবহার নিশ্চিতকরণ;


ঘ. নিরাপদ পানি এবং পানির নিরাপদ পরিকল্পনা

ক্স    পানির নিরাপদ ব্যবহার নিশ্চিত করতে অরিয়েন্টশন প্রদান করা ;

ক্স    খানা পর্যায়ে পানির নিরাপদ ব্যবহার চর্চা করাতে উৎসাহিত ও সহায়তা করা ;

ক্স    কমিউনিটি পর্যায়ে পানির উৎস পরিষ্কার পরিচ্ছন্নতা ও জীবানুমুক্ত রাখতে সহায়তা প্রদান করা ;

ঙ. স্বাস্থ্যবিধি উন্নয়ন   

ক্স    স্বাস্থ্যবিধি শিক্ষা বিষয়ক সচেতনতামূলক উঠান বৈঠক পরিচালনা করা ;

ক্স    নারী ও কিশোরীদের জন্য ঋতুকালীন স্বাস্থ্যবিধি পরিচর্যা বিষয়ক সচেতনতামূলক সভা পরিচালনা ;

ক্স    কমিউনিটির নেতৃত্বে খানা পর্যায়ে স্বল্প মূল্যের হাত ধোয়ার প্রযুক্তি স্থাপন করা ;


চ. প্রাতিষ্ঠানিক পর্যায়ে ওয়াশ


স্কুল পর্যায়ে ওয়াশ  অবস্থার উন্নয়ন

    ওয়াশ ব্লক নির্মাণের জন্য স্কুল পর্যায়ে ওয়াশ বিষয়ক অবস্থা নিরুপণ করা ;

    মাধ্যমিক স্কুল পর্যায়ে উন্নত ওয়াশ ব্লক নির্মাণ করা ;

    তিন তারকা পদ্ধতিতে স্কুল পর্যায়ে ওয়াশ অবস্থা উন্নয়নে সহায়তা করা ;

    স্কুল ব্যবস্থাপনা কমিটি ও শিক্ষকদের জন্য ওয়াশ বিষয়ক অরিয়েন্টশন প্রদান করা 


স্বাস্থ্য সেবা কেন্দ্র পর্যায়্রে ওয়াশ  অবস্থার উন্নয়ন

    ওয়াশ ব্লক নির্মাণের জন্য স্বাস্থ্য সেবা কেন্দ্রগুলোতে ওয়াশ বিষয়ক অবস্থা নিরুপণ করা 

    স্বাস্থ্য সেবা কেন্দ্রগুলোতে ওয়াশ ব্লক নির্মাণ করা 

    স্বাস্থ্য সেবা কেন্দগুর্লোর স্বাস্থ্যকর্মীর জন্য ওয়াশ বিষয়ক অরিয়েন্টশন প্রদান করা 


ছ. দক্ষতা উন্নয়নমূলক বিভিন্ন প্রশিক্ষণ এবং কার্যক্রম পরিচালনা


প্রত্যাশিত ফলাফল ঃ

    ২৫০০০ জন (শিশু, নারী এবং পিছিয়ে পড়া সুবিধাবঞ্চিত জনগোষ্ঠি) উন্নত ল্যাট্রিনের সুবিধা পাবে ;

    ৫০ টি কমিউনিটি/পাড়ার (আনুমানিক ৫০০০ খানা) নিরাপদ পানির অভিগম্যতা পাবে/আওতায় আসবে ;

    ২৫০০০ জন (শিশু, নারী, কিশোরী এবং পিছিয়ে পড়া সুবিধাবঞ্চিত জনগোষ্ঠি) সচেতনতামূলক সেশনের মাধ্যমে  স্বাস্থ্যবিধি উন্নয়ন বিষয়ক বার্তা পাবে ও চর্চা করবে ;

    ৮০০০ জন নারী ও কিশোরী ঋতুকালীন স্বাস্থ্যবিধি পরিচর্যা বিষয়ক সচেতন ও চর্চা করবে ;

    ১০টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে নতুন ওয়াশ অবকাঠামো নির্মাণ এবং ওয়াশ অবস্থার উন্নয়ন হবে ; 

    ১০টি স্বাস্থ্য সেবা কেন্দ্রে (কমিউনিটি ক্লিনিক) নতুন ওয়াশ অবকাঠামো নির্মাণ এবং ওয়াশ অবস্থার উন্নয়ন হবে ;

    প্রশিক্ষণ, কর্মশালা, সভা এবং অরিয়েন্টেশনের মাধ্যমে প্রকল্পের বিভিন্ন স্টেকহোল্ডারদের ওয়াশ বিষয়ক দক্ষতার উন্নয়ন ;


চৌফলদন্ডি ইউনিয়নের (৪টি ওয়ার্ড) ওয়াশ বিষয়ক বেইজ তথ্য:

ওয়ার্ড নং    মোট পাড়া/ কমিউনিটি    মোট পরিবার    জনসংখ্যা    ভিন্ন ধারায় সক্ষম ব্যক্তি    নলকূপ    ল্যাট্রিন

            বালক     বালিকা    পুরুষ    নারী    মোট    নারী    পুরুষ    গভীর    অগভীর    প্লাটফর্ম আছে    প্লাটফর্ম নাই    স্বাস্থ্যকর    অস্বাস্থ্যকর

১    ৪    ৩৮২    ২৫৯    ২৪২    ৭৬০    ৮২৯    ২০৯০    ০    ১    ৮৮    ২৬    ১১৪    ০    ৬৮    ২২৮

২    ৬    ৭৩১    ৮৯০    ৮০২    ১০৮৯    ১০৪৭    ৩৮২৮    ১৪    ১৫    ৬৭    ৭৩    ১৩৯    ১    ৫০    ৩৯১

৩    ৮    ৮৫৯    ১০৫৭    ১০০৮    ১৪০০    ১৩৫৮    ৪৮২৩    ৭    ৪    ৮৫    ৮৫    ১৭০    ০    ৬৬    ৪৮৩

৪    ৭    ৮৪৩    ১০০৯    ৯২৭    ১৩১৩    ১১৬৪    ৪৪১৩    ৭    ২    ৮২    ৬১    ১৪৩    ০    ৪৯    ৫৫৮

মোট    ২৫    ২৮১৫    ৩২১৫    ২৯৭৯    ৪৫৬২    ৪৩৯৮    ১৫১৫৪    ২৮    ২২    ৩২২    ২৪৫    ৫৬৬    ১    ২৩৩    ১৬৬০


প্রকল্পের উল্লেখযোগ্য অর্জন সমূহঃ


ক্স    জনগনের নেতৃত্বে “শতভাগ খোলা পায়খানামুক্ত কমিউনিটি” ঘোষনাকরণ

ক্স    জনগনের নেতৃত্বে স্বাস্থ্যসম্মত পায়খানা স্থাপন  এবং অস্বাস্বাস্থ্যকর পায়খানা স্বাস্থ্যসম্মতকরণ-

ক্স    কমিউনিটি ভিত্তিক নলকূপ জীবাণুমুক্তকরণ কাযক্রম (ডিজইনফেকশন) পরিচালনা-

ক্স    জনসমাগম স্থানে হ্যান্ড ওয়াশিং ডিভাইস স্থাপন

ক্স    জনগণের্ উদ্যোগে খানা র্পায়ে স্বল্প মূল্যের হ্যান্ড ওয়াশিং ডিভাইস স্থাপন-

ক্স    কমিউনিটি পর্যায়ে স্বাস্থ্যশিক্ষা বিষয়ক উঠানবৈঠক ও বিভিন্ন কার্যক্রম পরিচালনা

ক্স    শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ওয়াশ ব্লক নির্মাণ - ০৫টি

    (চৌফলদন্ডি ইউনিয়নে-২টি, খুরুশকুল ইউনিয়নে-১টি, পিএমখালী ইউনিয়নে-১টি এবং কক্সবাজার পৌরসভায়-১টি)

ক্স    স্বাস্থ্যসেবা কেন্দ্রে (কমিউনিটি ক্লিনিক) ওয়াশ ব্লক নির্মাণ - ০৫টি ;

(চৌফলদন্ডি ইউনিয়নে-২টি, খুরুশকুল ইউনিয়নে-২টি এবং পিএমখালী ইউনিয়নে-১টি)

ক্স    প্রকল্পের বিভিন্ন স্টেকহোল্ডারদের দক্ষতা উন্নয়নমূলক প্রশিক্ষণ ও কর্মশালা আয়োজন ও পরিচালনা ;

ক্স    বিভিন্ন দিবস উদযাপন ;





ধন্যবাদ

ভিলেজ এডুকেশন রিসোর্স সেন্টার (ভার্ক)

বি-৩০ এখলাস উদ্দিন খান রোড

আনন্দপুর, সাভার, ঢাকা-১৩৪০



ভার্ক পরিচিতি: 


ভিলেজ এডুকেশন রিসোর্স সেন্টার ১৯৭৭ গঠিত হয়। সংক্ষেপে এর পরিচয় ভার্ক বা ভি ই আর সি, এ নামের অর্থ -  পল্লী সম্পদ ব্যবহার শিক্ষা কেন্দ্র। গঠনকালে ভার্ক ইউনিসেফের আর্থিক সহায়তায় সেভ দ্যা চিল্ড্রেন (ইউএসএ) এর একটি প্রকল্প হিসেবে আত্মপ্রকাশ করে। শুরুতে প্রকল্পটির উদ্দেশ্য ছিল বিভিন্ন শিক্ষা উপকরণ তৈরি, সংগ্রহ এবং তার উন্নয়ন। এসব উপকরণ সমূহ যাচাই ও গ্রহণযোগ্যতা পরীক্ষার পর তা বিভিন্ন সরকারি ও বেসরকারি সংস্থার মধ্যে ছড়িয়ে দেয়া। ভাকর্-কে ১৯৮১ সালে একটি বেসরকারী স্বেচ্ছাসেবী উন্নয়ন সংগঠনে রূপ দেয়া হয়। ভার্ক হয়ে ওঠে এ দেশীয় সংগঠন।


আইনগত বৈধতাঃ    


ভার্ক ১৯৮১ সালে জয়েন্ট স্টক কোম্পানীজ এর নিবন্ধন লাভ করে, ১৯৮২ সালে এনজিও বিষয়ক ব্যুরোর নিবন্ধন লাভ করে, ১৯৮৯ সালে সমাজ সেবা অধিদপ্তর এর নিবন্ধন লাভ করে এবং ২০০৭ সালে মাইক্রোক্রেডিট রেগুলেটরী অথরিটি এর নিবন্ধন লাভ করে।


সংস্থার লক্ষ্য, উদ্দেশ্য এবং বিশেষত্ব: 


সংস্থার লক্ষ্য: 

ক্স    অনগ্রসরদের সক্রিয অংশগ্রহণ এবং ক্ষমতায়ন।

ক্স    মানুষের ক্ষমতা বিকাশ।


সংস্থার উদ্দেশ্য:

মানব উন্নয়নের জন্য একটি গতিশীল ও অংশীদারিত্বমূলক স্থায়ীত্বশীল প্রক্রিয়া প্রতিষ্ঠা ও নিশ্চিত করা। ভার্ক-এর কর্তব্য-কর্ম বা মিশন হচ্ছে - মানব উন্নয়নের লক্ষ্যে এমন এক গতিময় প্রাঞ্জল প্রক্রিয়া গড়ে তোলা ও বিকশিত করা, যে প্রক্রিয়া হবে অংশগ্রহণমূলক এবং টেকসই। ” তাই ভার্ক কর্মক্ষেত্রে নতুন-নতুন প্রক্রিয়া গড়ে তোলে আর তারপর তা থেকে শেখা বিষয়গুলো উন্নয়ন কাজে নিয়োজিত অন্যদের কাছে পৌঁছে দেয়।


সংস্থার বিশেষত্ব:

ন্যায়বিচার, ন্যাযপরায়ণতা এবং টেকসইতার উপর ভিত্তি করে একটি স্বনির্ভর এবং আলোকিত সমাজ যেখানে প্রতিটি মানুষেরই তাদের সম্ভাবনা সর্বাধিক করার সমান সুযোগ রয়েছে।


সংস্থার প্রধান কর্যালয়ের ঠিকানা ঃ


ভিলেজ এডুকেশন রিসোর্স সেন্টার (ভার্ক)

বি-৩০ এখলাস উদ্দিন খান রোড

আনন্দপুর, সাভার, ঢাকা-১৩৪০


প্রকল্প অফিস ঃ 


ভিলেজ এডুকেশন রিসোর্স সেন্টার (ভার্ক)

এসকে ট্ওায়ার, উত্তর তারাবুনিয়ারছড়া 

কক্সবাজার পৌরসভা, কক্সবাজার। 

যোগাযোগ : মোঃ কামরুল হাসান, প্রোগ্রাম ম্যানেজার, ভার্ক, কক্সবাজার।

মোবাইল : ০১৭৪৩-৯২৫২৯৯, ইমেইল : শধসৎঁষথাবৎপ@ুধযড়ড়.পড়স


কক্সবাজার জেলায় বাস্তবায়িত প্রকল্পের বিবরণ ঃ


প্রকল্পের নাম : 


ওসঢ়ষবসবহঃধঃরড়হ ড়ভ ঈড়ী’ং ইধুধৎ ডঅঝঐ চৎড়মৎধস ভড়ষষড়রিহম ঈড়সসঁহরঃু অঢ়ঢ়ৎড়ধপযবং ঃড় ঞড়ঃধষ ঝধহরঃধঃরড়হ (ঈঅঞঝ), চৎড়সড়ঃরড়হ ড়ভ ডধঃবৎ ঝধভবঃু চষধহং ধহফ ডঅঝঐ রহ ওহংঃরঃঁঃরড়হ ঁহফবৎ এড়ই-টঘওঈঊঋ চৎড়লবপঃ.


প্রকল্পের সংক্ষিপ্ত নাম ঃ উঊঠঈঙ-ওও ডঅঝঐ চৎড়লবপঃ


সহায়তায় : ইউনিসেফ

প্রকল্পের মেয়াদকাল : ফেব্রুয়ারি ২০২১ ইং হতে জানুয়ারি ২০২৩ ইং। 

প্রকল্প কর্ম এলাকা :  চৌফলদন্ডি ইউনিয়ন, কক্সবাজার সদর উপজেলা এবং ছোট মহেশখালী ইউনিয়ন, মহেশখালী।










ক. কোভিড-১৯ মোকাবেলায় সহায়তাকরণ

ক্স    কোভিড-১৯ মোকাবেলায় কক্সবাজার জেলায় বিভিন্ন উপজেলায় নিয়মিতভাবে ৩০০০ পানির উৎস জীবাণুনাশক স্প্রে কার্যক্রম পরিচালনা করা এবং কমিউনিটির জনগোষ্ঠিকে সচেতন করা;

ক্স    কক্সবাজার জেলার বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, স্বাস্থ্য সেবা কেন্দ্র এবং জনসমাগম স্থানে ১০০০টি হাত ধোয়ার প্রযুক্তি (ঐধহফ ডধংযরহম উবারপব) স্থাপন  করা;

ক্স    কোভিড-১৯ মোকাবেলায় সচেতনতা বৃদ্ধি এবং মোকাবেলায় কমিউনিটি, ইউনিয়ন ও ওয়ার্ড ওয়াটসান কমিটিকে দক্ষতা বৃদ্ধি ও সহায়তা প্রদান করা ;

খ. পানি, পয়ঃনিষ্কাশন ও স্বাস্থ্যবিধি বিষয়ক বেইসলাইন সার্ভে 

ক্স    খানা পর্যায়ে ওয়াশ বিষয়ক অনলাইন সার্ভে পরিচালনা করা ;

ক্স    বেইসলাইন সার্ভের তথ্য ও উপাত্ত নিয়মিতভাবে হালনাগাদ করা ;


গ. খোলা পায়খানা মুক্তকরন ও উন্নত স্যানিটেশন ব্যবহার 

ক্স    জনগণের অংশগ্রহণের মাধ্যমে কমিউনিটির ওয়াশ অবস্থা বিশ্লেষণ 

ক্স    জনগণের নেতৃত্বে কমিউনিটি ও ওয়ার্ড পর্যায়ে ”খোলা পায়খানা মুক্ত” কমিউনিটি ও ওয়ার্ড  ঘোষণা করা ;

ক্স    কমিউনিটির সাথে স্থানীয় স্যানিটেশন ব্যবসায়ীদের সাথে কার্যকর যোগাযোগ ও সংযোগ স্থাপন;

ক্স    কমিউনিটির নেতৃত্বে স্বাস্থ্যসম্মত ল্যাট্রিন স্থাপন ও ব্যবহার নিশ্চিতকরণ;


ঘ. নিরাপদ পানি এবং পানির নিরাপদ পরিকল্পনা

ক্স    পানির নিরাপদ ব্যবহার নিশ্চিত করতে অরিয়েন্টশন প্রদান করা ;

ক্স    খানা পর্যায়ে পানির নিরাপদ ব্যবহার চর্চা করাতে উৎসাহিত ও সহায়তা করা ;

ক্স    কমিউনিটি পর্যায়ে পানির উৎস পরিষ্কার পরিচ্ছন্নতা ও জীবানুমুক্ত রাখতে সহায়তা প্রদান করা ;

ঙ. স্বাস্থ্যবিধি উন্নয়ন   

ক্স    স্বাস্থ্যবিধি শিক্ষা বিষয়ক সচেতনতামূলক উঠান বৈঠক পরিচালনা করা ;

ক্স    নারী ও কিশোরীদের জন্য ঋতুকালীন স্বাস্থ্যবিধি পরিচর্যা বিষয়ক সচেতনতামূলক সভা পরিচালনা ;

ক্স    কমিউনিটির নেতৃত্বে খানা পর্যায়ে স্বল্প মূল্যের হাত ধোয়ার প্রযুক্তি স্থাপন করা ;


চ. প্রাতিষ্ঠানিক পর্যায়ে ওয়াশ


স্কুল পর্যায়ে ওয়াশ  অবস্থার উন্নয়ন

    ওয়াশ ব্লক নির্মাণের জন্য স্কুল পর্যায়ে ওয়াশ বিষয়ক অবস্থা নিরুপণ করা ;

    মাধ্যমিক স্কুল পর্যায়ে উন্নত ওয়াশ ব্লক নির্মাণ করা ;

    তিন তারকা পদ্ধতিতে স্কুল পর্যায়ে ওয়াশ অবস্থা উন্নয়নে সহায়তা করা ;

    স্কুল ব্যবস্থাপনা কমিটি ও শিক্ষকদের জন্য ওয়াশ বিষয়ক অরিয়েন্টশন প্রদান করা 


স্বাস্থ্য সেবা কেন্দ্র পর্যায়্রে ওয়াশ  অবস্থার উন্নয়ন

    ওয়াশ ব্লক নির্মাণের জন্য স্বাস্থ্য সেবা কেন্দ্রগুলোতে ওয়াশ বিষয়ক অবস্থা নিরুপণ করা 

    স্বাস্থ্য সেবা কেন্দ্রগুলোতে ওয়াশ ব্লক নির্মাণ করা 

    স্বাস্থ্য সেবা কেন্দগুর্লোর স্বাস্থ্যকর্মীর জন্য ওয়াশ বিষয়ক অরিয়েন্টশন প্রদান করা 


ছ. দক্ষতা উন্নয়নমূলক বিভিন্ন প্রশিক্ষণ এবং কার্যক্রম পরিচালনা


প্রত্যাশিত ফলাফল ঃ

    ২৫০০০ জন (শিশু, নারী এবং পিছিয়ে পড়া সুবিধাবঞ্চিত জনগোষ্ঠি) উন্নত ল্যাট্রিনের সুবিধা পাবে ;

    ৫০ টি কমিউনিটি/পাড়ার (আনুমানিক ৫০০০ খানা) নিরাপদ পানির অভিগম্যতা পাবে/আওতায় আসবে ;

    ২৫০০০ জন (শিশু, নারী, কিশোরী এবং পিছিয়ে পড়া সুবিধাবঞ্চিত জনগোষ্ঠি) সচেতনতামূলক সেশনের মাধ্যমে  স্বাস্থ্যবিধি উন্নয়ন বিষয়ক বার্তা পাবে ও চর্চা করবে ;

    ৮০০০ জন নারী ও কিশোরী ঋতুকালীন স্বাস্থ্যবিধি পরিচর্যা বিষয়ক সচেতন ও চর্চা করবে ;

    ১০টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে নতুন ওয়াশ অবকাঠামো নির্মাণ এবং ওয়াশ অবস্থার উন্নয়ন হবে ; 

    ১০টি স্বাস্থ্য সেবা কেন্দ্রে (কমিউনিটি ক্লিনিক) নতুন ওয়াশ অবকাঠামো নির্মাণ এবং ওয়াশ অবস্থার উন্নয়ন হবে ;

    প্রশিক্ষণ, কর্মশালা, সভা এবং অরিয়েন্টেশনের মাধ্যমে প্রকল্পের বিভিন্ন স্টেকহোল্ডারদের ওয়াশ বিষয়ক দক্ষতার উন্নয়ন ;


চৌফলদন্ডি ইউনিয়নের (৪টি ওয়ার্ড) ওয়াশ বিষয়ক বেইজ তথ্য:

ওয়ার্ড নং    মোট পাড়া/ কমিউনিটি    মোট পরিবার    জনসংখ্যা    ভিন্ন ধারায় সক্ষম ব্যক্তি    নলকূপ    ল্যাট্রিন

            বালক     বালিকা    পুরুষ    নারী    মোট    নারী    পুরুষ    গভীর    অগভীর    প্লাটফর্ম আছে    প্লাটফর্ম নাই    স্বাস্থ্যকর    অস্বাস্থ্যকর

১    ৪    ৩৮২    ২৫৯    ২৪২    ৭৬০    ৮২৯    ২০৯০    ০    ১    ৮৮    ২৬    ১১৪    ০    ৬৮    ২২৮

২    ৬    ৭৩১    ৮৯০    ৮০২    ১০৮৯    ১০৪৭    ৩৮২৮    ১৪    ১৫    ৬৭    ৭৩    ১৩৯    ১    ৫০    ৩৯১

৩    ৮    ৮৫৯    ১০৫৭    ১০০৮    ১৪০০    ১৩৫৮    ৪৮২৩    ৭    ৪    ৮৫    ৮৫    ১৭০    ০    ৬৬    ৪৮৩

৪    ৭    ৮৪৩    ১০০৯    ৯২৭    ১৩১৩    ১১৬৪    ৪৪১৩    ৭    ২    ৮২    ৬১    ১৪৩    ০    ৪৯    ৫৫৮

মোট    ২৫    ২৮১৫    ৩২১৫    ২৯৭৯    ৪৫৬২    ৪৩৯৮    ১৫১৫৪    ২৮    ২২    ৩২২    ২৪৫    ৫৬৬    ১    ২৩৩    ১৬৬০


প্রকল্পের উল্লেখযোগ্য অর্জন সমূহঃ


ক্স    জনগনের নেতৃত্বে “শতভাগ খোলা পায়খানামুক্ত কমিউনিটি” ঘোষনাকরণ

ক্স    জনগনের নেতৃত্বে স্বাস্থ্যসম্মত পায়খানা স্থাপন  এবং অস্বাস্বাস্থ্যকর পায়খানা স্বাস্থ্যসম্মতকরণ-

ক্স    কমিউনিটি ভিত্তিক নলকূপ জীবাণুমুক্তকরণ কাযক্রম (ডিজইনফেকশন) পরিচালনা-

ক্স    জনসমাগম স্থানে হ্যান্ড ওয়াশিং ডিভাইস স্থাপন

ক্স    জনগণের্ উদ্যোগে খানা র্পায়ে স্বল্প মূল্যের হ্যান্ড ওয়াশিং ডিভাইস স্থাপন-

ক্স    কমিউনিটি পর্যায়ে স্বাস্থ্যশিক্ষা বিষয়ক উঠানবৈঠক ও বিভিন্ন কার্যক্রম পরিচালনা

ক্স    শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ওয়াশ ব্লক নির্মাণ - ০৫টি

    (চৌফলদন্ডি ইউনিয়নে-২টি, খুরুশকুল ইউনিয়নে-১টি, পিএমখালী ইউনিয়নে-১টি এবং কক্সবাজার পৌরসভায়-১টি)

ক্স    স্বাস্থ্যসেবা কেন্দ্রে (কমিউনিটি ক্লিনিক) ওয়াশ ব্লক নির্মাণ - ০৫টি ;

(চৌফলদন্ডি ইউনিয়নে-২টি, খুরুশকুল ইউনিয়নে-২টি এবং পিএমখালী ইউনিয়নে-১টি)

ক্স    প্রকল্পের বিভিন্ন স্টেকহোল্ডারদের দক্ষতা উন্নয়নমূলক প্রশিক্ষণ ও কর্মশালা আয়োজন ও পরিচালনা ;

ক্স    বিভিন্ন দিবস উদযাপন ;





ধন্যবাদ

ভিলেজ এডুকেশন রিসোর্স সেন্টার (ভার্ক)

বি-৩০ এখলাস উদ্দিন খান রোড

আনন্দপুর, সাভার, ঢাকা-১৩৪০



ভার্ক পরিচিতি: 


ভিলেজ এডুকেশন রিসোর্স সেন্টার ১৯৭৭ গঠিত হয়। সংক্ষেপে এর পরিচয় ভার্ক বা ভি ই আর সি, এ নামের অর্থ -  পল্লী সম্পদ ব্যবহার শিক্ষা কেন্দ্র। গঠনকালে ভার্ক ইউনিসেফের আর্থিক সহায়তায় সেভ দ্যা চিল্ড্রেন (ইউএসএ) এর একটি প্রকল্প হিসেবে আত্মপ্রকাশ করে। শুরুতে প্রকল্পটির উদ্দেশ্য ছিল বিভিন্ন শিক্ষা উপকরণ তৈরি, সংগ্রহ এবং তার উন্নয়ন। এসব উপকরণ সমূহ যাচাই ও গ্রহণযোগ্যতা পরীক্ষার পর তা বিভিন্ন সরকারি ও বেসরকারি সংস্থার মধ্যে ছড়িয়ে দেয়া। ভাকর্-কে ১৯৮১ সালে একটি বেসরকারী স্বেচ্ছাসেবী উন্নয়ন সংগঠনে রূপ দেয়া হয়। ভার্ক হয়ে ওঠে এ দেশীয় সংগঠন।


আইনগত বৈধতাঃ    


ভার্ক ১৯৮১ সালে জয়েন্ট স্টক কোম্পানীজ এর নিবন্ধন লাভ করে, ১৯৮২ সালে এনজিও বিষয়ক ব্যুরোর নিবন্ধন লাভ করে, ১৯৮৯ সালে সমাজ সেবা অধিদপ্তর এর নিবন্ধন লাভ করে এবং ২০০৭ সালে মাইক্রোক্রেডিট রেগুলেটরী অথরিটি এর নিবন্ধন লাভ করে।


সংস্থার লক্ষ্য, উদ্দেশ্য এবং বিশেষত্ব: 


সংস্থার লক্ষ্য: 

ক্স    অনগ্রসরদের সক্রিয অংশগ্রহণ এবং ক্ষমতায়ন।

ক্স    মানুষের ক্ষমতা বিকাশ।


সংস্থার উদ্দেশ্য:

মানব উন্নয়নের জন্য একটি গতিশীল ও অংশীদারিত্বমূলক স্থায়ীত্বশীল প্রক্রিয়া প্রতিষ্ঠা ও নিশ্চিত করা। ভার্ক-এর কর্তব্য-কর্ম বা মিশন হচ্ছে - মানব উন্নয়নের লক্ষ্যে এমন এক গতিময় প্রাঞ্জল প্রক্রিয়া গড়ে তোলা ও বিকশিত করা, যে প্রক্রিয়া হবে অংশগ্রহণমূলক এবং টেকসই। ” তাই ভার্ক কর্মক্ষেত্রে নতুন-নতুন প্রক্রিয়া গড়ে তোলে আর তারপর তা থেকে শেখা বিষয়গুলো উন্নয়ন কাজে নিয়োজিত অন্যদের কাছে পৌঁছে দেয়।


সংস্থার বিশেষত্ব:

ন্যায়বিচার, ন্যাযপরায়ণতা এবং টেকসইতার উপর ভিত্তি করে একটি স্বনির্ভর এবং আলোকিত সমাজ যেখানে প্রতিটি মানুষেরই তাদের সম্ভাবনা সর্বাধিক করার সমান সুযোগ রয়েছে।


সংস্থার প্রধান কর্যালয়ের ঠিকানা ঃ


ভিলেজ এডুকেশন রিসোর্স সেন্টার (ভার্ক)

বি-৩০ এখলাস উদ্দিন খান রোড

আনন্দপুর, সাভার, ঢাকা-১৩৪০


প্রকল্প অফিস ঃ 


ভিলেজ এডুকেশন রিসোর্স সেন্টার (ভার্ক)

এসকে ট্ওায়ার, উত্তর তারাবুনিয়ারছড়া 

কক্সবাজার পৌরসভা, কক্সবাজার। 

যোগাযোগ : মোঃ কামরুল হাসান, প্রোগ্রাম ম্যানেজার, ভার্ক, কক্সবাজার।

মোবাইল : ০১৭৪৩-৯২৫২৯৯, ইমেইল : শধসৎঁষথাবৎপ@ুধযড়ড়.পড়স


কক্সবাজার জেলায় বাস্তবায়িত প্রকল্পের বিবরণ ঃ


প্রকল্পের নাম : 


ওসঢ়ষবসবহঃধঃরড়হ ড়ভ ঈড়ী’ং ইধুধৎ ডঅঝঐ চৎড়মৎধস ভড়ষষড়রিহম ঈড়সসঁহরঃু অঢ়ঢ়ৎড়ধপযবং ঃড় ঞড়ঃধষ ঝধহরঃধঃরড়হ (ঈঅঞঝ), চৎড়সড়ঃরড়হ ড়ভ ডধঃবৎ ঝধভবঃু চষধহং ধহফ ডঅঝঐ রহ ওহংঃরঃঁঃরড়হ ঁহফবৎ এড়ই-টঘওঈঊঋ চৎড়লবপঃ.


প্রকল্পের সংক্ষিপ্ত নাম ঃ উঊঠঈঙ-ওও ডঅঝঐ চৎড়লবপঃ


সহায়তায় : ইউনিসেফ

প্রকল্পের মেয়াদকাল : ফেব্রুয়ারি ২০২১ ইং হতে জানুয়ারি ২০২৩ ইং। 

প্রকল্প কর্ম এলাকা :  চৌফলদন্ডি ইউনিয়ন, কক্সবাজার সদর উপজেলা এবং ছোট মহেশখালী ইউনিয়ন, মহেশখালী।










ক. কোভিড-১৯ মোকাবেলায় সহায়তাকরণ

ক্স    কোভিড-১৯ মোকাবেলায় কক্সবাজার জেলায় বিভিন্ন উপজেলায় নিয়মিতভাবে ৩০০০ পানির উৎস জীবাণুনাশক স্প্রে কার্যক্রম পরিচালনা করা এবং কমিউনিটির জনগোষ্ঠিকে সচেতন করা;

ক্স    কক্সবাজার জেলার বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, স্বাস্থ্য সেবা কেন্দ্র এবং জনসমাগম স্থানে ১০০০টি হাত ধোয়ার প্রযুক্তি (ঐধহফ ডধংযরহম উবারপব) স্থাপন  করা;

ক্স    কোভিড-১৯ মোকাবেলায় সচেতনতা বৃদ্ধি এবং মোকাবেলায় কমিউনিটি, ইউনিয়ন ও ওয়ার্ড ওয়াটসান কমিটিকে দক্ষতা বৃদ্ধি ও সহায়তা প্রদান করা ;

খ. পানি, পয়ঃনিষ্কাশন ও স্বাস্থ্যবিধি বিষয়ক বেইসলাইন সার্ভে 

ক্স    খানা পর্যায়ে ওয়াশ বিষয়ক অনলাইন সার্ভে পরিচালনা করা ;

ক্স    বেইসলাইন সার্ভের তথ্য ও উপাত্ত নিয়মিতভাবে হালনাগাদ করা ;


গ. খোলা পায়খানা মুক্তকরন ও উন্নত স্যানিটেশন ব্যবহার 

ক্স    জনগণের অংশগ্রহণের মাধ্যমে কমিউনিটির ওয়াশ অবস্থা বিশ্লেষণ 

ক্স    জনগণের নেতৃত্বে কমিউনিটি ও ওয়ার্ড পর্যায়ে ”খোলা পায়খানা মুক্ত” কমিউনিটি ও ওয়ার্ড  ঘোষণা করা ;

ক্স    কমিউনিটির সাথে স্থানীয় স্যানিটেশন ব্যবসায়ীদের সাথে কার্যকর যোগাযোগ ও সংযোগ স্থাপন;

ক্স    কমিউনিটির নেতৃত্বে স্বাস্থ্যসম্মত ল্যাট্রিন স্থাপন ও ব্যবহার নিশ্চিতকরণ;


ঘ. নিরাপদ পানি এবং পানির নিরাপদ পরিকল্পনা

ক্স    পানির নিরাপদ ব্যবহার নিশ্চিত করতে অরিয়েন্টশন প্রদান করা ;

ক্স    খানা পর্যায়ে পানির নিরাপদ ব্যবহার চর্চা করাতে উৎসাহিত ও সহায়তা করা ;

ক্স    কমিউনিটি পর্যায়ে পানির উৎস পরিষ্কার পরিচ্ছন্নতা ও জীবানুমুক্ত রাখতে সহায়তা প্রদান করা ;

ঙ. স্বাস্থ্যবিধি উন্নয়ন   

ক্স    স্বাস্থ্যবিধি শিক্ষা বিষয়ক সচেতনতামূলক উঠান বৈঠক পরিচালনা করা ;

ক্স    নারী ও কিশোরীদের জন্য ঋতুকালীন স্বাস্থ্যবিধি পরিচর্যা বিষয়ক সচেতনতামূলক সভা পরিচালনা ;

ক্স    কমিউনিটির নেতৃত্বে খানা পর্যায়ে স্বল্প মূল্যের হাত ধোয়ার প্রযুক্তি স্থাপন করা ;


চ. প্রাতিষ্ঠানিক পর্যায়ে ওয়াশ


স্কুল পর্যায়ে ওয়াশ  অবস্থার উন্নয়ন

    ওয়াশ ব্লক নির্মাণের জন্য স্কুল পর্যায়ে ওয়াশ বিষয়ক অবস্থা নিরুপণ করা ;

    মাধ্যমিক স্কুল পর্যায়ে উন্নত ওয়াশ ব্লক নির্মাণ করা ;

    তিন তারকা পদ্ধতিতে স্কুল পর্যায়ে ওয়াশ অবস্থা উন্নয়নে সহায়তা করা ;

    স্কুল ব্যবস্থাপনা কমিটি ও শিক্ষকদের জন্য ওয়াশ বিষয়ক অরিয়েন্টশন প্রদান করা 


স্বাস্থ্য সেবা কেন্দ্র পর্যায়্রে ওয়াশ  অবস্থার উন্নয়ন

    ওয়াশ ব্লক নির্মাণের জন্য স্বাস্থ্য সেবা কেন্দ্রগুলোতে ওয়াশ বিষয়ক অবস্থা নিরুপণ করা 

    স্বাস্থ্য সেবা কেন্দ্রগুলোতে ওয়াশ ব্লক নির্মাণ করা 

    স্বাস্থ্য সেবা কেন্দগুর্লোর স্বাস্থ্যকর্মীর জন্য ওয়াশ বিষয়ক অরিয়েন্টশন প্রদান করা 


ছ. দক্ষতা উন্নয়নমূলক বিভিন্ন প্রশিক্ষণ এবং কার্যক্রম পরিচালনা


প্রত্যাশিত ফলাফল ঃ

    ২৫০০০ জন (শিশু, নারী এবং পিছিয়ে পড়া সুবিধাবঞ্চিত জনগোষ্ঠি) উন্নত ল্যাট্রিনের সুবিধা পাবে ;

    ৫০ টি কমিউনিটি/পাড়ার (আনুমানিক ৫০০০ খানা) নিরাপদ পানির অভিগম্যতা পাবে/আওতায় আসবে ;

    ২৫০০০ জন (শিশু, নারী, কিশোরী এবং পিছিয়ে পড়া সুবিধাবঞ্চিত জনগোষ্ঠি) সচেতনতামূলক সেশনের মাধ্যমে  স্বাস্থ্যবিধি উন্নয়ন বিষয়ক বার্তা পাবে ও চর্চা করবে ;

    ৮০০০ জন নারী ও কিশোরী ঋতুকালীন স্বাস্থ্যবিধি পরিচর্যা বিষয়ক সচেতন ও চর্চা করবে ;

    ১০টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে নতুন ওয়াশ অবকাঠামো নির্মাণ এবং ওয়াশ অবস্থার উন্নয়ন হবে ; 

    ১০টি স্বাস্থ্য সেবা কেন্দ্রে (কমিউনিটি ক্লিনিক) নতুন ওয়াশ অবকাঠামো নির্মাণ এবং ওয়াশ অবস্থার উন্নয়ন হবে ;

    প্রশিক্ষণ, কর্মশালা, সভা এবং অরিয়েন্টেশনের মাধ্যমে প্রকল্পের বিভিন্ন স্টেকহোল্ডারদের ওয়াশ বিষয়ক দক্ষতার উন্নয়ন ;


চৌফলদন্ডি ইউনিয়নের (৪টি ওয়ার্ড) ওয়াশ বিষয়ক বেইজ তথ্য:

ওয়ার্ড নং    মোট পাড়া/ কমিউনিটি    মোট পরিবার    জনসংখ্যা    ভিন্ন ধারায় সক্ষম ব্যক্তি    নলকূপ    ল্যাট্রিন

            বালক     বালিকা    পুরুষ    নারী    মোট    নারী    পুরুষ    গভীর    অগভীর    প্লাটফর্ম আছে    প্লাটফর্ম নাই    স্বাস্থ্যকর    অস্বাস্থ্যকর

১    ৪    ৩৮২    ২৫৯    ২৪২    ৭৬০    ৮২৯    ২০৯০    ০    ১    ৮৮    ২৬    ১১৪    ০    ৬৮    ২২৮

২    ৬    ৭৩১    ৮৯০    ৮০২    ১০৮৯    ১০৪৭    ৩৮২৮    ১৪    ১৫    ৬৭    ৭৩    ১৩৯    ১    ৫০    ৩৯১

৩    ৮    ৮৫৯    ১০৫৭    ১০০৮    ১৪০০    ১৩৫৮    ৪৮২৩    ৭    ৪    ৮৫    ৮৫    ১৭০    ০    ৬৬    ৪৮৩

৪    ৭    ৮৪৩    ১০০৯    ৯২৭    ১৩১৩    ১১৬৪    ৪৪১৩    ৭    ২    ৮২    ৬১    ১৪৩    ০    ৪৯    ৫৫৮

মোট    ২৫    ২৮১৫    ৩২১৫    ২৯৭৯    ৪৫৬২    ৪৩৯৮    ১৫১৫৪    ২৮    ২২    ৩২২    ২৪৫    ৫৬৬    ১    ২৩৩    ১৬৬০


প্রকল্পের উল্লেখযোগ্য অর্জন সমূহঃ


ক্স    জনগনের নেতৃত্বে “শতভাগ খোলা পায়খানামুক্ত কমিউনিটি” ঘোষনাকরণ

ক্স    জনগনের নেতৃত্বে স্বাস্থ্যসম্মত পায়খানা স্থাপন  এবং অস্বাস্বাস্থ্যকর পায়খানা স্বাস্থ্যসম্মতকরণ-

ক্স    কমিউনিটি ভিত্তিক নলকূপ জীবাণুমুক্তকরণ কাযক্রম (ডিজইনফেকশন) পরিচালনা-

ক্স    জনসমাগম স্থানে হ্যান্ড ওয়াশিং ডিভাইস স্থাপন

ক্স    জনগণের্ উদ্যোগে খানা র্পায়ে স্বল্প মূল্যের হ্যান্ড ওয়াশিং ডিভাইস স্থাপন-

ক্স    কমিউনিটি পর্যায়ে স্বাস্থ্যশিক্ষা বিষয়ক উঠানবৈঠক ও বিভিন্ন কার্যক্রম পরিচালনা

ক্স    শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ওয়াশ ব্লক নির্মাণ - ০৫টি

    (চৌফলদন্ডি ইউনিয়নে-২টি, খুরুশকুল ইউনিয়নে-১টি, পিএমখালী ইউনিয়নে-১টি এবং কক্সবাজার পৌরসভায়-১টি)

ক্স    স্বাস্থ্যসেবা কেন্দ্রে (কমিউনিটি ক্লিনিক) ওয়াশ ব্লক নির্মাণ - ০৫টি ;

(চৌফলদন্ডি ইউনিয়নে-২টি, খুরুশকুল ইউনিয়নে-২টি এবং পিএমখালী ইউনিয়নে-১টি)

ক্স    প্রকল্পের বিভিন্ন স্টেকহোল্ডারদের দক্ষতা উন্নয়নমূলক প্রশিক্ষণ ও কর্মশালা আয়োজন ও পরিচালনা ;

ক্স    বিভিন্ন দিবস উদযাপন ;





ধন্যবাদ

ভিলেজ এডুকেশন রিসোর্স সেন্টার (ভার্ক)

বি-৩০ এখলাস উদ্দিন খান রোড

আনন্দপুর, সাভার, ঢাকা-১৩৪০



ভার্ক পরিচিতি: 


ভিলেজ এডুকেশন রিসোর্স সেন্টার ১৯৭৭ গঠিত হয়। সংক্ষেপে এর পরিচয় ভার্ক বা ভি ই আর সি, এ নামের অর্থ -  পল্লী সম্পদ ব্যবহার শিক্ষা কেন্দ্র। গঠনকালে ভার্ক ইউনিসেফের আর্থিক সহায়তায় সেভ দ্যা চিল্ড্রেন (ইউএসএ) এর একটি প্রকল্প হিসেবে আত্মপ্রকাশ করে। শুরুতে প্রকল্পটির উদ্দেশ্য ছিল বিভিন্ন শিক্ষা উপকরণ তৈরি, সংগ্রহ এবং তার উন্নয়ন। এসব উপকরণ সমূহ যাচাই ও গ্রহণযোগ্যতা পরীক্ষার পর তা বিভিন্ন সরকারি ও বেসরকারি সংস্থার মধ্যে ছড়িয়ে দেয়া। ভাকর্-কে ১৯৮১ সালে একটি বেসরকারী স্বেচ্ছাসেবী উন্নয়ন সংগঠনে রূপ দেয়া হয়। ভার্ক হয়ে ওঠে এ দেশীয় সংগঠন।


আইনগত বৈধতাঃ    


ভার্ক ১৯৮১ সালে জয়েন্ট স্টক কোম্পানীজ এর নিবন্ধন লাভ করে, ১৯৮২ সালে এনজিও বিষয়ক ব্যুরোর নিবন্ধন লাভ করে, ১৯৮৯ সালে সমাজ সেবা অধিদপ্তর এর নিবন্ধন লাভ করে এবং ২০০৭ সালে মাইক্রোক্রেডিট রেগুলেটরী অথরিটি এর নিবন্ধন লাভ করে।


সংস্থার লক্ষ্য, উদ্দেশ্য এবং বিশেষত্ব: 


সংস্থার লক্ষ্য: 

ক্স    অনগ্রসরদের সক্রিয অংশগ্রহণ এবং ক্ষমতায়ন।

ক্স    মানুষের ক্ষমতা বিকাশ।


সংস্থার উদ্দেশ্য:

মানব উন্নয়নের জন্য একটি গতিশীল ও অংশীদারিত্বমূলক স্থায়ীত্বশীল প্রক্রিয়া প্রতিষ্ঠা ও নিশ্চিত করা। ভার্ক-এর কর্তব্য-কর্ম বা মিশন হচ্ছে - মানব উন্নয়নের লক্ষ্যে এমন এক গতিময় প্রাঞ্জল প্রক্রিয়া গড়ে তোলা ও বিকশিত করা, যে প্রক্রিয়া হবে অংশগ্রহণমূলক এবং টেকসই। ” তাই ভার্ক কর্মক্ষেত্রে নতুন-নতুন প্রক্রিয়া গড়ে তোলে আর তারপর তা থেকে শেখা বিষয়গুলো উন্নয়ন কাজে নিয়োজিত অন্যদের কাছে পৌঁছে দেয়।


সংস্থার বিশেষত্ব:

ন্যায়বিচার, ন্যাযপরায়ণতা এবং টেকসইতার উপর ভিত্তি করে একটি স্বনির্ভর এবং আলোকিত সমাজ যেখানে প্রতিটি মানুষেরই তাদের সম্ভাবনা সর্বাধিক করার সমান সুযোগ রয়েছে।


সংস্থার প্রধান কর্যালয়ের ঠিকানা ঃ


ভিলেজ এডুকেশন রিসোর্স সেন্টার (ভার্ক)

বি-৩০ এখলাস উদ্দিন খান রোড

আনন্দপুর, সাভার, ঢাকা-১৩৪০


প্রকল্প অফিস ঃ 


ভিলেজ এডুকেশন রিসোর্স সেন্টার (ভার্ক)

এসকে ট্ওায়ার, উত্তর তারাবুনিয়ারছড়া 

কক্সবাজার পৌরসভা, কক্সবাজার। 

যোগাযোগ : মোঃ কামরুল হাসান, প্রোগ্রাম ম্যানেজার, ভার্ক, কক্সবাজার।

মোবাইল : ০১৭৪৩-৯২৫২৯৯, ইমেইল : শধসৎঁষথাবৎপ@ুধযড়ড়.পড়স


কক্সবাজার জেলায় বাস্তবায়িত প্রকল্পের বিবরণ ঃ


প্রকল্পের নাম : 


ওসঢ়ষবসবহঃধঃরড়হ ড়ভ ঈড়ী’ং ইধুধৎ ডঅঝঐ চৎড়মৎধস ভড়ষষড়রিহম ঈড়সসঁহরঃু অঢ়ঢ়ৎড়ধপযবং ঃড় ঞড়ঃধষ ঝধহরঃধঃরড়হ (ঈঅঞঝ), চৎড়সড়ঃরড়হ ড়ভ ডধঃবৎ ঝধভবঃু চষধহং ধহফ ডঅঝঐ রহ ওহংঃরঃঁঃরড়হ ঁহফবৎ এড়ই-টঘওঈঊঋ চৎড়লবপঃ.


প্রকল্পের সংক্ষিপ্ত নাম ঃ উঊঠঈঙ-ওও ডঅঝঐ চৎড়লবপঃ


সহায়তায় : ইউনিসেফ

প্রকল্পের মেয়াদকাল : ফেব্রুয়ারি ২০২১ ইং হতে জানুয়ারি ২০২৩ ইং। 

প্রকল্প কর্ম এলাকা :  চৌফলদন্ডি ইউনিয়ন, কক্সবাজার সদর উপজেলা এবং ছোট মহেশখালী ইউনিয়ন, মহেশখালী।










ক. কোভিড-১৯ মোকাবেলায় সহায়তাকরণ

ক্স    কোভিড-১৯ মোকাবেলায় কক্সবাজার জেলায় বিভিন্ন উপজেলায় নিয়মিতভাবে ৩০০০ পানির উৎস জীবাণুনাশক স্প্রে কার্যক্রম পরিচালনা করা এবং কমিউনিটির জনগোষ্ঠিকে সচেতন করা;

ক্স    কক্সবাজার জেলার বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, স্বাস্থ্য সেবা কেন্দ্র এবং জনসমাগম স্থানে ১০০০টি হাত ধোয়ার প্রযুক্তি (ঐধহফ ডধংযরহম উবারপব) স্থাপন  করা;

ক্স    কোভিড-১৯ মোকাবেলায় সচেতনতা বৃদ্ধি এবং মোকাবেলায় কমিউনিটি, ইউনিয়ন ও ওয়ার্ড ওয়াটসান কমিটিকে দক্ষতা বৃদ্ধি ও সহায়তা প্রদান করা ;

খ. পানি, পয়ঃনিষ্কাশন ও স্বাস্থ্যবিধি বিষয়ক বেইসলাইন সার্ভে 

ক্স    খানা পর্যায়ে ওয়াশ বিষয়ক অনলাইন সার্ভে পরিচালনা করা ;

ক্স    বেইসলাইন সার্ভের তথ্য ও উপাত্ত নিয়মিতভাবে হালনাগাদ করা ;


গ. খোলা পায়খানা মুক্তকরন ও উন্নত স্যানিটেশন ব্যবহার 

ক্স    জনগণের অংশগ্রহণের মাধ্যমে কমিউনিটির ওয়াশ অবস্থা বিশ্লেষণ 

ক্স    জনগণের নেতৃত্বে কমিউনিটি ও ওয়ার্ড পর্যায়ে ”খোলা পায়খানা মুক্ত” কমিউনিটি ও ওয়ার্ড  ঘোষণা করা ;

ক্স    কমিউনিটির সাথে স্থানীয় স্যানিটেশন ব্যবসায়ীদের সাথে কার্যকর যোগাযোগ ও সংযোগ স্থাপন;

ক্স    কমিউনিটির নেতৃত্বে স্বাস্থ্যসম্মত ল্যাট্রিন স্থাপন ও ব্যবহার নিশ্চিতকরণ;


ঘ. নিরাপদ পানি এবং পানির নিরাপদ পরিকল্পনা

ক্স    পানির নিরাপদ ব্যবহার নিশ্চিত করতে অরিয়েন্টশন প্রদান করা ;

ক্স    খানা পর্যায়ে পানির নিরাপদ ব্যবহার চর্চা করাতে উৎসাহিত ও সহায়তা করা ;

ক্স    কমিউনিটি পর্যায়ে পানির উৎস পরিষ্কার পরিচ্ছন্নতা ও জীবানুমুক্ত রাখতে সহায়তা প্রদান করা ;

ঙ. স্বাস্থ্যবিধি উন্নয়ন   

ক্স    স্বাস্থ্যবিধি শিক্ষা বিষয়ক সচেতনতামূলক উঠান বৈঠক পরিচালনা করা ;

ক্স    নারী ও কিশোরীদের জন্য ঋতুকালীন স্বাস্থ্যবিধি পরিচর্যা বিষয়ক সচেতনতামূলক সভা পরিচালনা ;

ক্স    কমিউনিটির নেতৃত্বে খানা পর্যায়ে স্বল্প মূল্যের হাত ধোয়ার প্রযুক্তি স্থাপন করা ;


চ. প্রাতিষ্ঠানিক পর্যায়ে ওয়াশ


স্কুল পর্যায়ে ওয়াশ  অবস্থার উন্নয়ন

    ওয়াশ ব্লক নির্মাণের জন্য স্কুল পর্যায়ে ওয়াশ বিষয়ক অবস্থা নিরুপণ করা ;

    মাধ্যমিক স্কুল পর্যায়ে উন্নত ওয়াশ ব্লক নির্মাণ করা ;

    তিন তারকা পদ্ধতিতে স্কুল পর্যায়ে ওয়াশ অবস্থা উন্নয়নে সহায়তা করা ;

    স্কুল ব্যবস্থাপনা কমিটি ও শিক্ষকদের জন্য ওয়াশ বিষয়ক অরিয়েন্টশন প্রদান করা 


স্বাস্থ্য সেবা কেন্দ্র পর্যায়্রে ওয়াশ  অবস্থার উন্নয়ন

    ওয়াশ ব্লক নির্মাণের জন্য স্বাস্থ্য সেবা কেন্দ্রগুলোতে ওয়াশ বিষয়ক অবস্থা নিরুপণ করা 

    স্বাস্থ্য সেবা কেন্দ্রগুলোতে ওয়াশ ব্লক নির্মাণ করা 

    স্বাস্থ্য সেবা কেন্দগুর্লোর স্বাস্থ্যকর্মীর জন্য ওয়াশ বিষয়ক অরিয়েন্টশন প্রদান করা 


ছ. দক্ষতা উন্নয়নমূলক বিভিন্ন প্রশিক্ষণ এবং কার্যক্রম পরিচালনা


প্রত্যাশিত ফলাফল ঃ

    ২৫০০০ জন (শিশু, নারী এবং পিছিয়ে পড়া সুবিধাবঞ্চিত জনগোষ্ঠি) উন্নত ল্যাট্রিনের সুবিধা পাবে ;

    ৫০ টি কমিউনিটি/পাড়ার (আনুমানিক ৫০০০ খানা) নিরাপদ পানির অভিগম্যতা পাবে/আওতায় আসবে ;

    ২৫০০০ জন (শিশু, নারী, কিশোরী এবং পিছিয়ে পড়া সুবিধাবঞ্চিত জনগোষ্ঠি) সচেতনতামূলক সেশনের মাধ্যমে  স্বাস্থ্যবিধি উন্নয়ন বিষয়ক বার্তা পাবে ও চর্চা করবে ;

    ৮০০০ জন নারী ও কিশোরী ঋতুকালীন স্বাস্থ্যবিধি পরিচর্যা বিষয়ক সচেতন ও চর্চা করবে ;

    ১০টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে নতুন ওয়াশ অবকাঠামো নির্মাণ এবং ওয়াশ অবস্থার উন্নয়ন হবে ; 

    ১০টি স্বাস্থ্য সেবা কেন্দ্রে (কমিউনিটি ক্লিনিক) নতুন ওয়াশ অবকাঠামো নির্মাণ এবং ওয়াশ অবস্থার উন্নয়ন হবে ;

    প্রশিক্ষণ, কর্মশালা, সভা এবং অরিয়েন্টেশনের মাধ্যমে প্রকল্পের বিভিন্ন স্টেকহোল্ডারদের ওয়াশ বিষয়ক দক্ষতার উন্নয়ন ;


চৌফলদন্ডি ইউনিয়নের (৪টি ওয়ার্ড) ওয়াশ বিষয়ক বেইজ তথ্য:

ওয়ার্ড নং    মোট পাড়া/ কমিউনিটি    মোট পরিবার    জনসংখ্যা    ভিন্ন ধারায় সক্ষম ব্যক্তি    নলকূপ    ল্যাট্রিন

            বালক     বালিকা    পুরুষ    নারী    মোট    নারী    পুরুষ    গভীর    অগভীর    প্লাটফর্ম আছে    প্লাটফর্ম নাই    স্বাস্থ্যকর    অস্বাস্থ্যকর

১    ৪    ৩৮২    ২৫৯    ২৪২    ৭৬০    ৮২৯    ২০৯০    ০    ১    ৮৮    ২৬    ১১৪    ০    ৬৮    ২২৮

২    ৬    ৭৩১    ৮৯০    ৮০২    ১০৮৯    ১০৪৭    ৩৮২৮    ১৪    ১৫    ৬৭    ৭৩    ১৩৯    ১    ৫০    ৩৯১

৩    ৮    ৮৫৯    ১০৫৭    ১০০৮    ১৪০০    ১৩৫৮    ৪৮২৩    ৭    ৪    ৮৫    ৮৫    ১৭০    ০    ৬৬    ৪৮৩

৪    ৭    ৮৪৩    ১০০৯    ৯২৭    ১৩১৩    ১১৬৪    ৪৪১৩    ৭    ২    ৮২    ৬১    ১৪৩    ০    ৪৯    ৫৫৮

মোট    ২৫    ২৮১৫    ৩২১৫    ২৯৭৯    ৪৫৬২    ৪৩৯৮    ১৫১৫৪    ২৮    ২২    ৩২২    ২৪৫    ৫৬৬    ১    ২৩৩    ১৬৬০


প্রকল্পের উল্লেখযোগ্য অর্জন সমূহঃ


ক্স    জনগনের নেতৃত্বে “শতভাগ খোলা পায়খানামুক্ত কমিউনিটি” ঘোষনাকরণ

ক্স    জনগনের নেতৃত্বে স্বাস্থ্যসম্মত পায়খানা স্থাপন  এবং অস্বাস্বাস্থ্যকর পায়খানা স্বাস্থ্যসম্মতকরণ-

ক্স    কমিউনিটি ভিত্তিক নলকূপ জীবাণুমুক্তকরণ কাযক্রম (ডিজইনফেকশন) পরিচালনা-

ক্স    জনসমাগম স্থানে হ্যান্ড ওয়াশিং ডিভাইস স্থাপন

ক্স    জনগণের্ উদ্যোগে খানা র্পায়ে স্বল্প মূল্যের হ্যান্ড ওয়াশিং ডিভাইস স্থাপন-

ক্স    কমিউনিটি পর্যায়ে স্বাস্থ্যশিক্ষা বিষয়ক উঠানবৈঠক ও বিভিন্ন কার্যক্রম পরিচালনা

ক্স    শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ওয়াশ ব্লক নির্মাণ - ০৫টি

    (চৌফলদন্ডি ইউনিয়নে-২টি, খুরুশকুল ইউনিয়নে-১টি, পিএমখালী ইউনিয়নে-১টি এবং কক্সবাজার পৌরসভায়-১টি)

ক্স    স্বাস্থ্যসেবা কেন্দ্রে (কমিউনিটি ক্লিনিক) ওয়াশ ব্লক নির্মাণ - ০৫টি ;

(চৌফলদন্ডি ইউনিয়নে-২টি, খুরুশকুল ইউনিয়নে-২টি এবং পিএমখালী ইউনিয়নে-১টি)

ক্স    প্রকল্পের বিভিন্ন স্টেকহোল্ডারদের দক্ষতা উন্নয়নমূলক প্রশিক্ষণ ও কর্মশালা আয়োজন ও পরিচালনা ;

ক্স    বিভিন্ন দিবস উদযাপন ;